ক্ষেত যখন বড়লোকের ছেলে পর্ব - ১৩

#ক্ষেত_যখন_বড়লোকের_ছেলে
#পর্ব_১৩
#লেখকঃFahim_Sheikh
ক্ষেত যখন বড়লোকের ছেলে পর্ব - ১৩
ক্ষেত যখন বড়লোকের ছেলে পর্ব - ১৩

তারপর উঠে ফ্রেশ হয়ে জগিং এ গেলাম।।দীর্ঘ ২ঘন্টা জগিং

করার পর এসে ফ্রেশ হয়ে অফিসে যাওয়ার জন্য রেডি হলাম।।
তারপর ব্রেকফাস্ট করে অফিসের জন্য বেড়িয়ে পরলাম।।

অফিসে এসে পড়লাম আরেক জামেলায়,,,,,,,,,,,
আবার নাকি কালকে আমাদের মালেশিয়ার ব্রাঞ্চে কি সমস্যা হয়েছে তাই যেতে হবে।।এমনিতেই একদিন যাওয়া দরকার ছিল কারণ-আমি নতুন এমডি সু সেখানকার সবকিছু দেখেশুনে বুঝে নিতে হবে।😔😔😔।তাই আমিও আর না করতে পারলাম না।।

এখানে নাকি বাবা গেলে হবে না।।শালা সাথে করে নাকি আবার আমার হবু বউকেও নিয়া যেতে হবে।।। 😣😣😣

পাঠকগণ আপনারাই বলেন এই প্যারা নিয়া কেমনে যামু।।এই মাইয়ারে দেখেলেই এখন গা জ্বালা করে।।😡😡😡😡

অফিস থেকে এসে অনেক করে বাবাকে বললাম কিন্তু কোনো কাজ হলো না।তাও আবার ৩ দিনের জন্য যেতে হবে।।তারপর লাঞ্চ করে হাল্কা ঘুম দিলাম।।😴😴😴।।

বিকালে উঠে গিয়ে সব বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিলাম রাতে সবাই একসাথে ডিনার করে যে যার যার মতো বাসায় চলে আসলাম।।।

তারপর দিলাম একঘুম।।। 😴😴😴তার আগে বাবার সাথে কথা বলে জেনে নিলাম কালকে কয়টায় আমাদের ফ্লাইট।।🛩🛩🛩।

বাবা জানালেন যে সকাল ১১টায় আমাদের ফ্লাইট।🛩🛩🛩। কি আর করমু বুকে একরাশ দুঃখ নিয়া ঘুমাইয়া গেলাম😴😴😴

যথারীতি সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে নিলাম।।নিচে নাস্তা করতে টেবিলে বসে দেখি নিধি বসে নাস্তা করতাছে।।।

শালা এমনভাবে খাচ্ছে যে দেখে মনে হচ্ছে কোনো রাক্ষসী 👹👹👹দেখে আমার গা জ্বালা করতাছে + মাথা গরম হয়ে যাচ্ছে😠😠😠😠

তাকে দেখে বললাম-মা কে এই ছেমড়ি,, 🤔🤔🤔আর এখানে কি করে🤔🤔
আমাদের ১৪ গোষ্ঠীর মধ্যেও এমন রাক্ষসী কোনো মেয়ে নেই আমি যতদূর জানি।।।।(মাকে উদ্দেশ্য করে)

আমার কথা শুনে নিধি তার খাওয়া বন্ধ করে মন খারাপ করে বসে আছে।।।

তখন মা তার এই অবস্থা দেখে মা বলল- বাবা বৌমার সাথে এমন করতাসস কেন???🤔🤔🤔

আমি- বাহ এখন ছেলে থেকে একটা মেয়ে বেশি হয়ে গেল।।বাহ ভালো।।। থাক তোমরা এই মেয়েকে নিয়েই।।।আমি গেলাম আর ফিরব না।।।।বিদায় থাক।তোমরা তোমদের মতো।।

বলে চলে আসলাম বাসা থেকে আসার আগে আমার পাসপোর্ট নিয়ে আসলাম।। নাইলে এখন আবার কই থাকব।।।তারপর মেনেজার এর কাছ থেকে টিকিট নিয়ে চলে গেলাম মালেশিয়া,,,যাওয়ার আগে মেনেজারকে আমি যে এখানে চলে এসেছি।।।।তিনি বললেন আচ্ছা।।

আবার তিনি- আচ্ছা বাবা নিধি মামনি কি যাবে না।।

আমি- না আংকেল সে একটু অসুস্থ হয়ে পড়েছে (ডাহা মিথ্যা কথা😁😁😁)
আপনারা আবার বইলেন না যে আমি এই মিথ্যা কথা কইছি তাইলে আমার বাপে আমারে পিডাইয়া আস্তা রাখব না।।।😁😁😁
সেখানে গিয়ে হোটেলের রুম বুঝে নিলাম। আগে থেকেই বুকিং করা ছিল তাই অসুবিধা হয় নাই।।ফ্রেশ হয়ে দিলাম একঘুম।।।।বিকালের দিকে উঠে একটু ঘুরতে বের হলাম।।

ঘুরা ঘুরি শেষ করে সন্ধ্যায় হোটেলে এসে ফ্রেশ হয়ে নিলাম।।
তারপর বাইরে সন্ধ্যার আকাশ দেখে রাত ১০টা পর্যন্ত ঘুরে ডিনার করে হোটেলে এসে ঘুমিয়ে পড়লাম।।

সকালে ঘুম ভাঙে মোবাইলের চিল্লানীতে।।। ঘুমের মধ্যেই রিসিভ করলাম,,,ওপাশের কণ্ঠস্বর শুনে বুঝতে পারলাম আপু কল দিয়েছে।।

আমি-আসসালামু আলাইকুম।।

আপু-রাখ তর সালাম।। এখন কই তুই।।আর ২ দিন হল কই হারাইয়া গেসস।।🤔🤔🤔

আমি-আমি বাড়ি থেকে চলে এসেছি।। যেখানে আছি খুব ভালো আছি।।।

তুই কেমন আছস,দুলাভাই কেমন আছে,,,আর আমার কিউট ভাগ্নিটা কই🤔🤔🤔

আপু-আমু ভালো আছি।।তর ভাগ্নি সারাদিন টৈ টৈ করে বেড়ায়।।

আমরা এখন তোদের বাসায়।।আর তর দুলাভাই মালেশিয়া গেছে।।।

বাবা বলল ওখানকার ব্রাঞ্চে নাকি কি সমস্যা হয়েছে।।।

তোকে বলা হয়েছে তুই নাকি যাবি না।।

আমি- তা প্যাকেজ দুইজনের একজন গেল যে🤔🤔🤔

আপু- আর বলিশ না আরেকটা টিকিট নাকি হারাইয়া গেছে তাই যেতে পারলাম না।।।

আমি- আচ্ছা মন খারাপ করিস না।। আজকেই তর আসার ব্যবস্থা করছি।।আর হ্যা সাথে কাউকে নিতে পারবি না ভাগ্নিকে ছাড়া।।।

আপু- আচ্ছা ঠিক।।।।

আমি- ওকে,,বায়,,,এখন আবার বাইরে গিয়ে নাস্তা করতে হবে।।।

বলে কল কেটে দিলাম।। এবং মেনেজারকে কল করে সব ব্যবস্থা করতে বললাম।।।

তারপর নরমাল পোশাক পরে বেরিয়ে পড়লাম।। পরে রেস্টুরেন্ট থেকে সকালের নাস্তা করলাম।।।পরে আফিসের উদ্দেশ্যে রওনা দিলাম।।

অফিসের গেটে গিয়ে পড়লাম আরেক বিপদে,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,

জানি না আজকের পর্বটা আগের পর্বগুলো হতে ছোট হয়েছে কি না🤔🤔🤔🤔

আপনাদের সাড়া পেলে নেক্সট পর্ব দিব নয়তো দিব না।।

সবাই নিয়মিত নামায আদায় করুন।।।

(বিঃদ্রঃ ভুলট্রুটি ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন)
পোস্ট রেটিং করুন
ট্যাগঃ
About Author

টিউটোরিয়ালটি কেমন লেগেছে মন্তব্য করুন!