গল্প:-ভালো থাকুক ভালোবাসা।

গল্প:-ভালো থাকুক ভালোবাসা।
-------লেখক:-আবির------
নীলাকে দেখে চমকে না উঠার কোন কারন দেখলাম না। প্রায় ৪ বছর পর দেখা। কিন্তু ও এতটুকুও বদলায় নি। এমনকি মা হয়েও। ওকে দেখে অকারনেও মুখে হাসি এসে যাচ্ছে। যদিও হাসির কোন কারনই নেই।
গল্প:-ভালো থাকুক ভালোবাসা।
গল্প:-ভালো থাকুক ভালোবাসা।

" আরে, আবির। কেমন আছ?? "
নীলার কথা ভাবতে গিয়ে কখন যে ও পাশে এসে দাড়িয়েছি ডাকার আগে টেরই পাই নি।
আবির:- এই তো। তা তুমি দেশে এলে কবে?? "
নীলা:-গতকালেই। তুমি ঠিক আগের মতই আছ। একদম বদলাও নি।"
আবির:- তুমিও তো বদলাও নি।"
নীলা:-উহু, আমি অনেক বদলেছি। এই যে, মা হয়েছি, অন্যকারো স্ত্রী হয়েছি। আর আগের সেই চঞ্চলতাও আর নেই।বলতে পার পুরোটাই বদলে গেছি।"
আবির:-তোমার স্বামি কই ?? উনাকে যে দেখছি না।"
নীলা:- টায়ার্ড, ঘুমুচ্ছে। এত করে বললাম তাও আসল না। বলল, বাসার পাশেই মার্কেট। বাবুকে নিয়ে যা লাগে কিনে আনো। আমি আরেকটু ঘুমাই।"
আবির:- ওহ, কেমন আছ ?? "
নীলা:-এতক্ষনে,??!!!! হুম, ভালই।"
'
'
নীলা:-চুপ করে কি ভাবছ আবির?? "
আবির:-ভাবার আসলে তেমন কিছু নেই। তারপরও ভাবছি আমার এত কাছে থেকেও এমন অভিনয় তুমি কিভাবে করতে পারলে,, সেটা আমি বুঝতেই পারলাম না।"
নীলা:-সব অভিনয় কি মানুষ শুধু নিজের জন্যই করে?? "
আবির:-তাই বলে বাস্তবতা আর অভিনয়ের মধ্যে পার্থক্য থাকবে না ??? "
নীলা:-সেটা কখনো জানতে চাইনি। আর যখন চেয়েছি তখন এ ছাড়া আমার অন্য কোন পথ ছিল না আবির।"
আবির:-আমি জানি।"
এটা শুনেই নীলা চট করে আমার মুখের দিকে তাকাল। নিচু স্বরে শুধু বলল
নীলা:- কি জান তুমি ?? "
আবির:- সব।"
নীলা:- মানে ?? "
আবির:-তুমি আমাকে আসলেই অনেক ভালবাসতে। অনেক। কিন্তু কি করবে বল ?? তোমার নিয়তিতে যে আমি ছিলাম না। নইলে এমন হবে কেন ?? এখন আর ওসব ভাবি না। তবে ৪ বছর আগে খুব ভাবতাম। নিজেকে প্রতারিত মনে হত। কিন্তু বাস্তবতাকে মেনে নেয়া ছাড়া অন্য কোন পথও ছিল না। এছাড়া আর কিই বা করতে পারতাম আমি ?? "
নীলা:-কি জান তুমি ?? "
আবির:-চলে যাবার আগে কেন বললে, তুমি আমাকে ভালবাস না ?? সত্যটা বললে কি ক্ষতি হত তোমার ? তোমার মা তোমার অজান্তেই তোমার জন্য ছেলে ঠিক করে রেখেছিল। যেদিন তুমি তোমার মাকে আমার কথা বললে সেদিনই তোমার মা তোমাকে ঐ ছেলের কথা তোমাকে জানায়। তারপরও তুমি রাজি না হওয়াতে তোমার মা সুইসাইড করার হুমকি দেয়। আর দেয়াটাই স্বাভাবিক । যে ছেলের মায়ের কাছে তোমার মা কথা দিয়েছিল তুমি আমাকে বিয়ে করলে তোমার মা কি করে তাদের সামনে মুখ দেখাতো ??? আমি জানি সেটা তুমিও বুঝতে পেরেছ। তাই আমার সাথে মিথ্যে বলে আমার কাছ থেকে অনেক দুরে সরে গিয়েছিলে। কি দরকার ছিল মিথ্যে বলে দুরে সরাবার ??? আমি তোমাকে ভালবাসতাম। তোমার ভালর জন্য সবই তো করতে পারতাম। এমন অভিনয়টা না করলেও পারতে। তাতে দুজনেই ভাল থাকতাম। "
নীলা:-এতকিছু কার কাছে জানলে তুমি।?? "
আবির:-লিমার কাছে। তোমার সবচেয়ে কাছের বান্ধুবী। তুমি বিয়ে করে নেপাল যাবার পর ও আমাকে সবকিছুই বলেছে। তুমি চলে যাবার পর ও সবসময় আমাকে সাপোর্ট দিয়েছে। "
নীলা:-তারমানে লিমা কি এখন তোমার......... "
আবির:-হ্যা, আমার স্ত্রী। ওকে নিয়ে আমি আসলেই অনেক ভাল আছি। আর আমরা দুজনেই চাই তোমরাও সুখে থাক। আমিই লিমাকে তোমার সাথে যোগাযোগ করতে না করেছিলাম। চাইনি অতীতের ছায়াটা বর্তমানকে অন্ধকারে ঢাকুক।"
নীলা:-তা, বিয়ে করলে কবে ?? "
আবির:-বছর দুয়েক।"
নীলা:-জানো আবির, এতদিন নিজেকে খুব ছোট মনে হত। প্রতিদিন ইচ্ছা করত তোমাকে সবকিছু বলে দেই। তাতে কিছু না হলেও নিজেকে অন্তত চাপমুক্ত লাগত। আসলেই এ ছাড়া আমার অন্যকোন পথ ছিল না।"
আবির:-হুম। বাদ দাও এসব। যা হবার তা তো হবেই। যদি সময় হয় তোমার স্বামীকে নিয়ে তোমার বান্ধবির বাসায় একবার এসো। দাওয়াত রইল। আর ভাল থেকো।"
নীলা:- হুম, তুমিও।"
-----------------------------(সমাপ্ত)--------------------------------
পোস্ট রেটিং করুন
ট্যাগঃ
About Author

টিউটোরিয়ালটি কেমন লেগেছে মন্তব্য করুন!