অচেনা কেউ.. #পর্ব_৩

#অচেনা_কেউ
#পর্ব_৩
লেখক_আয়াত_মুস্তারিহ_আয়ান
অচেনা কেউ.. #পর্ব_৩
অচেনা কেউ.. #পর্ব_৩

রাত ১২টা.কবরস্থান এ একা দাড়িয়ে আছি আমি..ভয়ে যেনো সাড়া শরীরের ল্পম দাড়িয়ে যাচ্ছে আমার..
কে আসতে যাচ্ছে..কি হতে যাচ্ছে কিছুই জানি নাহ..
কে হতে পারে??সে??আর সবচেয়ে বড় কথা আমি আবার কোন বড় বিপদে পড়বো না তো??
.
.
এমন সময় হঠাৎ পিছন থেকে হাত পড়ে আমার কাধে..
.
আমি ২সেকেন্ড অপেক্ষা করে পিছনে তাকাই..
.
তাকাতেই যেনো আমি পড়ান পাখি উড়ে যায়..
.
আমি আহহহহহহহহহ করে চেচিয়ে উঠি..
.
১০পা পিছিয়ে যাই..আর গোঙাতে থাকি..
.

এমন সময় সামনে থাকা লোকটা আমার হাত ধরে..

চল তুই বাড়ি চল আগে..পড়ে তোকে দেখাচ্ছি মজা..তোর সাহস এতো হয়ে গেছে যে তুই রাত ১২টা বাজে একা একা কবরস্থানে এসে পড়িস??
.
সে আমার হাত ধরে টেনে টেনে বাড়ি নিয়ে এলো..
.
হে উনি আর কেউ নন আমার বাবা..যাকে দেখে আমি হয়তো এই দুনয়াতে সবচেয়ে বেশি ভয় পাই..
.
.
আমি এখন বাবার রুমে সামনে..
.
কি করবো কি বলবো কিছুই বুঝতে পারতেছি নাহ৷

এতোক্ষন বাবা আমার সামনে বসে ছিলো এখন বললো...
.
যাও রুমে যাও অনেক রাত হয়ে গেছে ঘুমাতে যাও৷

.
.
আমি অবাক হয়ে গেলাম..বাবা কিছু বললো না আমায়??আর বাবাই বা কি করে জানলো যে এতো রাতে আমি কবরস্থানে গিয়েছে..সে তো জানে আমি আরফা দের বাসায় যাবো..
.
.
যাই হোক..আমি রুমে এসে ফ্রেশ হয়ে শুয়ে আছি..
.
এমন সময় আয়ানের নাম্বার থেকে কল আসে..
.
.
আমি রিসিভ করে তাকে সব বলি..
.
সে তো পুরো হাসতে হাসতে বেহুশ..
কিন্তু এ কোন আয়ান আমি চিনতে পারতেছি না..
.
বান্ধুবীদের থেকে জিজ্ঞাসাও করা হলো নাহ..
.
যাই হোক..
.
আয়ান আর আমার কথা এখন ও চলতেছে..

>হুম এখন বলতো তুমি আমাকে কি করে চিনো??
>আচ্ছা তোমার মনে আছে আমি আর তুমি ঘুরতে গেছিলাম??লাক্কাতুরায়??
>হে হে আমি লাক্কাতুরায় গিয়েছিলাম..কিন্তু...
>কিন্তু কি??
>কিন্তু তুমি আমার সাথে ছিলে??
>হে.. তুমি আর আমি হাত ধরে চা বাগান দেখলাম তুমার মনে নেই??
>না..
>আয়েশা কি হলো তোমার??
>মানে??
>সব ভুলে গেছো??
>না আমি ভুলি নি..আসলে আপনি আমাকে চিনেন ই না মনে হচ্ছে৷
.
.
আচ্ছা আমার যাওয়ার সময় হয়েছে আয়েশা..আবার কাল কথা হবে...আবার নতুন কিছু দিয়ে তোমায় মনে করানোর চেষ্টা করবো
.
.
সে কেটে দিলো ফোন..কিন্তু আমার এখনও মনের মাঝে ২টা প্রশ্ন.. কে এই আয়ান??আর কে সেই অচেনা কেউ৷

.
আর বাবা কি করে জানলো আমি কবরস্থানে গেছি???
.

আমি,সব চিন্তা নিয়েই ঘুমাই..
.
ঘুম ভাংগে সকালে..
.
ঘুম ভাংতেই দেখি ফোনের স্ক্রিনে একটা মেসেজ..
.

.
আয়েশা সাবধানে থেকো..কিছু হলে আমি ডিরেক্ট তোমায় বাচাতে আসতে পারবো নাহ..
ইতি,
অচেনা কেউ..
.
.

আমি মানে বুঝলাম না মেসেজ এর..
.
আর কাল রাতের রাগ তো আছেই..ধুরর কি যে বলে..আমার নাকি সাবধানে থাকতে হবে..
.
.
আয়েশা উঠে ফ্রেশ হয়ে খাবার টেবলে যায়..
.
খাওয়া প্রায় শেষ পর্যায়ে..এমন সময় কলিং বেল বেজে উঠে..
.
আয়েশার আম্মু যায় দরজা খুলতে..
বাহিরে আয়েশার খালাতো ভাই..
.
আরে বাবা আরাফ??তুমি??
>খালামনী ঘুরতে এলাম বাসায়.থাকতে দিবে নাহ??
>আরে বাবা কি বলো..ভিতরে আসো..
>হুম আন্টি..
.
.
আরাফ আর আয়েশার সম্পর্ক অনেক গভীর..
.
কিরে আরু?? তুই এখানে??
>তোকে বিয়ে করতে এলাম..
>আম্মু আরু এসেই শুরু হয়ে গেছে ওকে খেতে দাও..
.
আয়েশা রুমে যায়..
.
আয়ান মেসেজ দিছে..
সে আয়ানের সাথে কথা বলতেছে..
.
.
আচ্ছা আয়েশা তুমি স্টেডিয়াম এ খেলা দেখতে পছন্দ করো না তাই নাহ??
>হুম..
>কতো জোড় করলাম তোমায় যে চলো আজ বাংলাদেশের খেলা স্টেডিয়ামে গিয়ে দেখি..
>আমাকে জোড় করেছিলো..কিন্তু তুমি না আরিশা..
>আরে..কিসের আরিশা..আমি আয়ান..
>ধুরর..তুমি আরিশার কিছু হউ না তো আবার??
>আরিশার কি হবো আমি??
>না মানে কিছু না..
>হুম..
>আচ্ছা এখন বায়..পরে মেসেজ দিবো..
.
.
.
হুম..
.
.
আয়েশা শিয়ে রেস্ট নিচ্ছে.. আর ভাবছে কে হতে পারে এই অচেনা তুমি.. আর আরিশা তো অনেক আগেই মারা গেছে..তাহলে আরিশার কেউ তো হওয়ার কথা না..
কিন্তু আয়ান টা কে??
.

আয়েশা গোসল এ যায়..
.
এমন সময় তার মা আসে রুমে আর বলে যে সে পাশের ফ্ল্যাটে যাচ্ছে..
.
আয়েশা হুম বলে উত্তর দেয়..
.
.
আয়েশা মনের আনন্দে গান গেয়ে গেয়ে গোসল করতেছে.।
.

এমন সময় তার ফোনে অচেনা সেই,মানুষটির মেসেজ আসে..
.
আয়েশা তুম বিপদে পড়তে যাচ্ছো৷ তোমার খালাতো ভাইয়ের নিয়ত ভালো না..আয়েশা মেসেজ দেখলে রিপ্লাই দেও আয়েশা..
.
আয়েশা বাথরুমে..সে কিছুই দেখতে পায় নি..এদিকে প্রথমবারের মতো সেই অচেনা মানুষটি ফোন দিচ্ছে আয়েশাকে৷

কিন্তু সে বাথরুমে..
.
আয়েশা ফোনের আওয়াজ শুনে বাথরুম থেকে বের হতেই দেখে সোফায় আরাফ বসে আছে...
.
সে শক্ত করে নিজের টাওয়েল বেধে নেয়..আর বলে.. আরু অন্য রুমে যা..আমি চেঞ্জ করে আসছি..
.
কিন্তু সে নড়েও না একফোটা..
.
এবার আয়েশা ভয় পায়..
.
আরু তোকে যেতে বলছি নাহ.??
>আরে আয়েশু..আমি দুইদিন আগে তোর ছবি দেখলাম ফেসবুকে..অনেক সুন্দর লাগছিলো আমার কেনো যানি সহ্য হলো নাহ..
.
এতো সুন্দর মেয়ে আমার বোন আর আমি টেস্ট করবো নাহ??
.
একি হয়??
>আয়েশা দৌড় দিতে নেয়..কিন্তু আরাফ ধরে ফেলে তাকে..আর বিছানায় ফেলে দেয়..
.
.
এখন আরাফ নেশার্থ হয়ে আছে..
.
সে আয়েশার দিকে এগুচ্ছে...
.
.
.
কিন্তু আয়েশা তো বুঝতেছে না এখন কি করবে।।কারণ অচেনা মানুষটি তাকে না করে দিছে যে সে সরাসরি বাচাতে আসতে পারবে নাহ তাকে..তাহলে কি হবে এখন আয়েশার???
.
.
#চলবে...
পোস্ট রেটিং করুন
ট্যাগঃ ,
About Author

টিউটোরিয়ালটি কেমন লেগেছে মন্তব্য করুন!