রাত যখন গভীর Part :06

Story :#রাত যখন গভীর 
writer:#jannatul mawa moho
writer :
Part :06
রাত যখন গভীর Part :06
রাত যখন গভীর Part :06


তখন সবাই দেখে। লালচে বৃত্ত টি আস্তে আস্তে সেই ঘরে প্রবেশ করছে। একটু পরে,লালচে বৃত্ত টি জীন প্রিন্স এর রুপ নেয়। মাথা নিচু করে বসে আছে প্রিন্স।
আর অন্য দিকে প্রিন্স রুমে প্রবেশ করার সাথে সাথে রিনি জেগে ওঠে।
আর প্রিন্স কে দেখে আঁতকে ওঠে।এতো মনে হচ্ছে স্বপ্নের সেই মানুষ।
রিনি মনে মনে বলছেঃ এই ছেলে তাহলে প্রিন্স।এই ছেলে তো আমার স্বপ্নে আসতো।আর স্বপ্নে দেখতাম আমার সাথে খুব ঘনিষ্ঠ হয়ে যেতো। আর যার ফলে মিলন হয়ে যায় ।
তবে আমি যখন চোখ জোড়া খুললি,তখন কিছুই দেখতে পেতামনা। আর স্বপ্নে দেখতাম প্রতিদিন আমাদের মিলন হতো।
আচ্ছা, এমন মিলন স্বপ্নে হলে বাস্তবে কি কষ্ট হয়? আমার মাঝে মধ্যে অনেক কষ্ট হতো।তাই মাঝে মধ্যে বলে উঠতাম, প্লিজ আমাকে ছেড়ে দাও।আমার কষ্ট হচ্ছে।
আর মাঝে মধ্যে দেখতাম আমি কোন এক সুখের দুনিয়ায় ভেসে যাচ্ছি। আর অনেক ভালো লাগা কাজ করতো!
আচ্ছা তাহলে কি যা স্বপ্নে দেখতাম! এগুলো কি আমার সাথে বাস্তবে হতো?
আর অন্য দিকে প্রিন্সের অবস্থা কিছু টা এমন যে,সে
তার মনে মনে খুব রাগ জারছে। তার বোন শাম্মি যদি না ডাকতো তাহলে সে কোন ভাবেই এখানে আসতো না।সে বোনের জন্য সব করতে পারে। এমনকি নিজের জীবন দিতে দ্বিতীয় বার চিন্তা করবেনা।এতটাই বোন শাম্মিকে ভালোবাসে।
আজ প্রিন্সের,
আত্মসম্মানে খুব লাগছে। কারণ সে একটা রাজ্যের ভবিষ্যতের রাজা।আর অপার শক্তির অধিকারি।মা বাবা ২ জনের শক্তি ই তার কাছে আছে।
তার পর ও কিছু মানুষ এর সামনে অপরাধীর মতো মাথা নিচু করে বসে থাকতে হচ্ছে। বরাবরই তার ইগো তে লাগছে!
তখনই
প্রিন্স মনে মনে বলছে ঃ আমার কি এমন দোষ ছিলো। যে আমার বাবা আর বোনের সামনে আমার আত্মসম্মান একদম মাটির সাথে মিলিয়ে দিলো এই মানুষ গুলো ।আর যদি এই বৃত্তের ভেতরে না থাকতাম তাহলে ওদের সবাইকে মেরে শেষ করে দিতাম।আর এই রিনি কে ও শেষ করে দিতাম।
অনেক্ক্ষণ ধরে চেষ্টা করছিলাম,এই বাসায় প্রবেশ করার। কিন্তু অর্ক,আর রাহাত হুজুর দোয়া পানির কারণে বারবার ব্যর্থ হয়েছে। আর রিনি নামাজ ঘরে থাকাতে তার উপর ভর করতে পারিনি।
আসলে আসল কথা কি জানেন, মানুষ যত দোষ করুক না কেন অন্যের দোষ বেশি দেখতে পাই।আর নিজেকে ধোঁয়ার তুলসী পাতা মনে করে।
ঠিক প্রিন্স ও নিজেকে ধোঁয়ার তুলসী পাতা মনে করচ্ছে।একটা মেয়ের জীবন নষ্ট করে ও তার যেন একটু ও অনুতপ্ত হচ্ছে না।
লাবু বলেঃ আচ্ছা রাবেয়া ভাবি, এই প্রিন্সের চোখ এত লাল হয়ে গেছে কেন? আর মনে হচ্ছে যেন বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসতে পারলেই আমাদের সবাই কে মেরে ফেলতো।
রাবেয়া বলে ঃ প্রিন্স কি করতো জানি না।তবে আমি হাতের কাছে পেলে। বেয়াদব কে আস্ত রাখতাম না।
কামাল বলে ঃ আহা! শান্ত হও।দেখি ওরা কি করে।
জান্নাত বলেঃপ্রিন্স সুন্দর করে বলবে কি কারণে রাত যখন গভীর হতো এমন অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত হতে?না হয় আমাদের জানা আছে, তোমাকে ঠিক কি করতে হবে।
সুমি বলেঃ ভালো ভালো, সব স্বীকার করে নাও।
হাবিব বলেঃ অন্যতাই তোমার সাথে আমরা এমন কিছু করবো যা তুমি ইমাজিন ও করতে পারবে না। অবশ্য স্বীকার করলে শাস্তি কমে যাবে।
রাজা মশাই বলেঃ সব সত্যি কথা বল।তুরে সুশিক্ষা দিয়েছিলাম কেন এমন আহাম্মক এর কাজ করলি?
শাম্মি বলেঃ ভাই তুর বিয়ে করতে মন চাইলে আমাকে বলতি?মা বাবার সাথে এই নিয়ে কথা বলতাম।আর আমাদের রাজ্যের সেরা সুন্দরী তুর বউ করে আনতাম।উওর দে????
অর্ক বলেঃ প্রিন্স
তুমি কি জনো না রিনির একটা ভবিষ্যত আছে!
কেন মেয়েটার জীবন অল্প বয়সে ধ্বংস করে দিচ্ছো।
হঠাৎ প্রিন্স বলে উঠে...........
চলবে.......
*****সবাই আমার ভালোবাসা নিবেন।ব্যাক্তিগত সমস্যার কারণে গল্প ছোট দেয়া হলো।অবশ্য এই পর্ব দিতাম না।আপনারা অপেক্ষা করেন তাই ছোট করে হলে দিয়ে দিলাম।যদি মনে হয় আমার দোষ তাহলে আমি এটার জন্য দুঃখীত।কমা প্রার্থী।😔😔😔
পরবর্তী পর্ব বড় করে দিয়ে আপনাদের পুষিয়ে দিবো।****😍
আর মন্তব্য করে জানাবেন কেমন হচ্ছে? 💙আপনার একটা মূল্যবান মন্তব্য আমার লেখার আগ্রহ বাড়িয়ে দেয়।আর আজকে একটু গল্প করবো আপনাদের সাথে !!আপনারা প্রিন্স সম্পর্কে কিছু বলেন? কেমন লাগে প্রিন্স কে?আর আপনারা কে কোন জেলার??😇
আমাকে কিন্তু অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।।।। আমি সবার কমেন্টের উত্তর দিবো।ইনশাআল্লাহ।।।❤
পোস্ট রেটিং করুন
ট্যাগঃ ,
About Author

টিউটোরিয়ালটি কেমন লেগেছে মন্তব্য করুন!