x সাইটম্যাপ ফেসবুক পেইজ আমাদের সম্পর্কে ডিসক্লেইমার গোপনীয়তা নীতিমালা
x সাইটম্যাপ ফেসবুক পেইজ আমাদের সম্পর্কে ডিসক্লেইমার গোপনীয়তা নীতিমালা

Top News

...About Me...

I Am Student Of Architechture And Interior Design.
I Like Design And Writing A Love Story.

...Recent Music...

...Recent Blogger...

...Recent Post...

» টিউনমেন্টঃ কোন মন্তব্য নেই

মহাকাশ ও মহাবিশ্ব - চাঁদের অজানা কিছু রহস্য

চাঁদের অজানা কিছু রহস্য

চাঁদের অজানা কিছু রহস্য

চাঁদের অজানা কিছু রহস্য 

চাঁদ – অনেক সময় নস্টালজিক, অনেক সময়
সুন্দরের প্রতীক আবার অনেক সময় আরো অনেক কিছু।
কিন্ত এই চাঁদ যে কত রহ্স্যের আর আধার তা কি
আর চাদের দিকে তাকিয়ে বলা যায়? দূর থেকে জ্বলজ্বলে এই চাঁদকে আমরা দেখেই যায় কিন্তু এর পেটে লুকিয়ে আছে নানা রকমের রহস্যের ঝুলি। তারই কিছু নিয়ে আজকের এই পোস্ট।

**চৌম্বক ক্ষেত্রঃ

চাঁদের সবচেয়ে বড় রহস্যের ব্যাপার হলো চাঁদের চৌম্বক ক্ষেত্র। চাঁদের আদপে কোন চৌম্বক ক্ষেত্র নেই। কিন্তু ১৯৬০ সালে নভোচারীদের আনা এবং ১৯৭০ সালে পাওয়া চাদের কয়েকটুকরো পাথর পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছিল সেই পাথরগুলোর
চৌম্বক ক্ষেত্র আছে। তাহলে কথা হচ্ছে চাঁদে যদি সত্যিই কোন চৌম্বক ক্ষেত্র না থেকে থাকে তাহলে পাথরগুলো কারা রেখে গিয়েছিল চাঁদে ? এলিয়েনরা?
সেটাও তো এখন পর্যন্ত সম্ভব না বা সম্ভব হলেও প্রমান পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে ব্যাপক গবেষনার পর বিজ্ঞানীরা পরে বের করতে সক্ষম হয়েছিলেন যে চাদে আসলে আগে চৌম্বক ক্ষেত্র ছিল কোন এক সময়ে। তবে কি কারনে চাঁদের সেই চৌম্বক ক্ষেত্র এখন গায়েব হয়ে গিয়েছে তা এখনও আমাদের পৃথিবীর বিজ্ঞানীরা বের করতে পারেন নি। একদল বিজ্ঞানী আবার দাবি করছেন যে চাদ আসলে আমরা যা ভাবি তা না। চাঁদ হলো শুধু একটিপাথরের দলা যা অচিরেই গুড়িয়ে যেতে
পারে। তবে এ কথার তেমন কোন প্রমান,
সত্যতা বা থিওরি পাওয়া যায়নি এখন পর্যন্ত।

**দ্যা মুন ইফেক্টঃ

পৃথিবীর উপর চাঁদের প্রভাদ কোনভাবেই
অস্বীকার করা যায়না। অনেকেই বিশ্বাস করেন পরিপুর্ণ চাঁদ অর্থাৎ চাঁদ যখন পুর্ণ থাকে বা পূর্নিমার রাতগুলোতে চাঁদ মানুষের ভেতর অদ্ভত সব ব্যাপার ঘটায়। যদি বিজ্ঞান এসবের কোন ব্যাখ্যা দেয় না। তবে আর কিছু করতে না পারলেও
বিজ্ঞানীরা একটি জিনিষ নিশ্চিত করেছেন আর সেটি হলো চাঁদ আমাদের ঘুমানোর প্রাত্যহিক রুটিন গড়বড় করে দিতে পারে। ইউনিভার্সিটি অফ বেজেল (সুইজারল্যান্ড) – এর একটি বৈজ্ঞানিক
পরীক্ষায় এটির প্রমান পাওয়া গিয়েছে।
১০০ ভলান্টিয়ারের উপর এই গবেষনায় দেখা
গিয়েছে পুর্নিমার সময় মানুষের ঘুমের খুব বেশী সমস্যা হয়, স্বাভাবিক রুটিনটি ঠিক থাকেনা আর অন্যান্য সময়ে ঘুম মোটামুটি ঠিক থাকে। এ থেকে আরেকটা ব্যাপার বের হয়ে আসে। যদি পুর্নিমার
সময় ঠিক মত ঘুম না হয় তাহলে মানুষের মাথায় হেলুসিনেশন হতে পারে আর তারা উল্টোপাল্টা আচরন করতে পারে বা দেখে।
কারন ঘুম কম হলে মানুষের মাথা ঠিক ঠিক মত কাজ করে না। আর সেই কারনেই হয়তো পুর্নিমার সময় দুনিয়ার সব ভৌতিক ব্যাপার স্যাপারের কথা বলা হয়।

**চাঁদের উৎপত্তি কোথায়?

চাঁদ আসলে এসেছে কোথা থেকে? এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর এখনো কারও জানা নেই তবে কিছু বিদ্বান ব্যাক্তি মাঝে মধ্যেই কিছু থিওরি দিয়ে গেছেন। এ নিয়ে মোটামুটি ৫টি থিওরি এখন পর্যন্ত পাওয়া গেছে।
**The Fission Theory এর মতে চাঁদ ছিল পৃথিবীর একটি অংশ যে পৃথিবীর
ইতিহাসের প্রথম দিকে আলাদা হয়ে গিয়েছিল। তাদের মতে চাঁদ ছিল প্রশান্ত মহাসাগরের একটি অংশ।
**The Capture Theory মতে চাঁদ ছিল ভেসে বেড়ানো কোন বস্তু যা পৃথিবীর গ্রাভিটেশন জোনে আসার পর আটকে যায় আর সেই থেকে চাদ আছে আমাদের সাথে।
**Ejected Ring Theory এর মতে চাঁদের জন্ম হয়েছিল কোন আরেকটি গ্রহের সাথে সংঘর্ষের ফলে আর সংঘর্ষ হয়েছিল আমাদের পৃথিবীর সাথে।
এগুলো ছাড়াও চাঁদ নিয়ে রহস্য আর অজানা ব্যাপারের কমতি নেই। তবে যাই হোক না কেন, চাঁদ তো চাঁদই। মাটি থেকে আকাশের চাদ দেখার আনন্দটাই অন্যরকম।
আর সে যদি হয় ঈদের চাঁদ তাহলে তো কথায়
নেই। কোন একদিন আমাদের দেশ থেকেও
চাঁদে মহাকাশযান পাঠানো হবে আর আমরাও হয়তো চাঁদে ভ্রমন করতে পারব। হয়তো দিবা-স্বপ্ন তবুও ভাবতে দোষ কি?

না জানা চাঁদের কিছু রহস্য।

আপনারা সকলেই জানেন যে চাঁদ আমাদের এক অতি পরিচিত একটি বস্তু। ছোটবেলা থেকেই আমরা
সকলেই ‘চাঁদমামা’ কে দেখে বড় হয়েছি এবং দাদা-দাদি ও বাবা-মায়ের কাছে চাঁদের বুড়ি ইত্যাদি নানা গল্প কাহিনী শুনেছি।আগে আমাদের মা চাঁদ মামাকে দেখিয়ে খাবার খাওয়াতেন ।কিন্তু আজকের মায়েরা মোবাইলে কাটুন দেখিয়ে খাবার খাওয়ায় ।যুগ পাল্টে গেছে কিন্তু মায়ের ভালোবাসা সেইরকমই আছে ।


একপর্যায়ে টেলিস্কোপে চাঁদ দেখে বিজ্ঞানী গ্যালিলিও মনে করেছিলেন চাঁদে বিশাল সমুদ্র আছে এবং সে হিসেবে চাঁদের ওপর বিভিন্ন এলাকার নামকরণও করেছিলেন গ্র্যালিলিও । অবশ্য আজ আমরা জানি এসবই
মানুষের কল্পনা মাত্র, যদিও চাঁদের ‘সমুদ্র’গুলি আজও বিদ্যমান।

চাঁদে কোনও জীব নেই বা থাকতেও পারে না কারণ সেখানে বায়ু বা জল কিছুই নেই, যদিও ভারতের ‘চন্দ্রযান-1’ দ্বারা পাঠানো

তথ্য থেকে জানতে পারা গিয়েছে চাঁদে সামান্য পরিমাণে জল হয়ত থাকতে পারে যা জীবন ধারণের জন্য পর্য্যাপ্ত নয় । কিন্তু চাঁদ সম্পর্কে একটা রহস্যের সমাধান বহুদিন পাওয়া যায় নি, আর তা হল আমাদের চাঁদ এল কোথা থেকে? এ রহস্যের সমাধান সম্প্রতি পাওয়া গিয়েছে। 1970 সাল পর্য্যন্ত চাঁদের উত্পত্তি সম্পর্কে অর্থাত্‍ চাদ যেভাবে সৃষ্টি হয় এ বিষয়ে সংগ্রহীত তিনটি মতবাদ গ্রহনযোগ্য হিসেবে মনে করা হত।সেগুলো নিচে বর্ননা করা হলো
এই তথ্যা অনুসারে তীব্র বেগে পৃথিবীর ঘূর্ণনের ফলে পৃথিবীর এক ক্ষুদ্র অংশ বিষুবীয় অঞ্চল থেকে ছিটকে যাওয়ার ফলেই চাঁদের সৃষ্টি হয়।
এই মতবাদ অনুসারে চাঁদের উত্পত্তি এক স্বাধীন মহাকাশীয় পিণ্ড রূপে হয়েছিল ।যা পরবর্তিকালে পৃথিবীর অভিকর্ষের টানে বন্দি হয়ে যায়।
জানা গেছে তীব্র বেগে পৃথিবীর ঘূর্ণনের ফলে চাঁদের উত্পত্তির মতবাদটি সর্বপ্রথম প্রণয়ন করেন চার্লস্ডা রউইনের পুত্র জর্জ ডারউইন, 1879 খৃষ্টাব্দে। তাঁর এই
ধারণার প্রধান কারণ ছিল পৃথিবী ও চাঁদের মধ্যে ঘনত্বের তফাত। তিনি জানতেন যে পৃথিবীর ঘনত্ব 5.57 এবং সে’তুলনায় চাঁদের ঘনত্ব 3.34, যা প্রায় পৃথিবীর বহিঃস্থ স্তরের ঘনত্বের সমতুল্য। সুতরাং পৃথিবীর বহিঃস্থ স্তরের উপাদান থেকে চাঁদের উত্পত্তির সম্ভাবনা একেবারে অমূলক নয়।

জর্জ ডারউইন আরও বলেন যে পৃথিবীর বহিঃস্থ স্তরের কিছু অংশ ছিটকে যাওয়ার ফলেই প্রশান্ত মহাসাগরের সৃষ্টি হয়েছিল।জর্জ ডারউইনের এই মতবাদ বহুদিন ধরে মানুষ মেনে নিয়ে ছিল। কিন্তু তারপর ক্রমশঃ
বুঝতে পারা গেল পৃথিবীর
ঘূর্ণনের গতি কোনও সময়েই এত দ্রুত ছিল না যার ফলে পৃথিবীর বহিঃস্থ স্তর ছিটকে বেরিয়ে
আসতে পারে। তাছাড়া প্রশান্ত মহাসাগরের উত্পত্তি নিয়েও যথেষ্ট অনিশ্চয়তা ছিল।

জেনেনিন কিছু তথ্য

প্রথমতঃ প্রশান্ত মহাসাগরের আয়তন চাঁদের আয়তনের তুলনায় অনেক কম; তার মানে কেবলমাত্র পৃথিবী থেকে ছিটকে যাওয়া বস্তু থেকে চাঁদের উত্পত্তি হওয়া অসম্ভব।

দ্বিতীয়তঃ চাঁদ পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ হিসেবে প্রায় 4,500 কোটি বছর ধরে পৃথিবীর কক্ষপথে পরিক্রমণ করছে। সে তুলনায় প্রশান্ত মহাসাগরের উত্পত্তি হয়েছিল আজ থেকে আনুমানিক 75 কোটি বছর আগে,মহাদেশীয় চলনের ফলস্বরূপ।

আরও একটি অসঙ্গতি হল চাঁদের কক্ষপথ। যদি সত্যিই চাঁদের উত্পত্তি পৃথিবী থেকে বিখণ্ডিত অংশ থেকে হয়ে থাকে তাহলে চাঁদের কক্ষপথ পৃথিবীর বিষুব রেখার সমান্তরাল হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু বাস্তবে তা নয়।
বস্তুতঃ চাঁদের কক্ষপথ
পৃথিবীর বিষুবরেখার সঙ্গে 28.5 ডিগ্রি কোণাকুণি রয়েছে। সুতরাং জর্জ ডারউইনের ধারণা ভুল ছিল।

বারে যদি আমরা দ্বিতীয়
সম্ভাবনাটির দিকে তাকাই তাহলে তা’তেও কিছু সমস্যা দেখতে পাব। যদি সত্যিই পৃথিবী ও চাঁদের উত্পত্তি একই উপাদান থেকে একই সংঙ্গে হয়ে থাকে তাহলে উভয়ের ঘনত্ব এক হওয়া উচিত। কিন্তু বাস্তবে তা নয়। সুতরাং এ’ধারণাটিরও কোনও যুক্তি নেই। চাঁদের উত্পত্তি সংক্রান্ত তৃতীয় মতবাদটি সামনে আসে 1950 খীষ্টাব্দে। এই মতবাদ অনুসারে গ্রহাণুদের মত চাঁদও একটি স্বাধীন মহাকাশীয় পিণ্ড যা কোটি কোটি বছর আগে পৃথিবীর অভিকর্ষের টানে বন্দি হয়ে পড়ে। কিন্তু এখানেও একটা বিশাল সমস্যা আছে, বিশেষ করে চাঁদের রাসায়নিক গঠনের
ক্ষেত্রে। চাঁদের জন্ম যদি
সত্যিই অন্যান্য গ্রহাণুদের মত হয়ে থাকে তবে তাদের রাসায়নিক গঠনের মধ্যে সাদৃশ্য থাকা উচিত । যা কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় না।

তো বন্ধুরা পারলে একটা ভালো কমেন্ট করে যাবেন ।


Tags: চাঁদের অজানা কিছু রহস্য,Ojana tottho,জানা অজানা বিজ্ঞান,মহাবিশ্ব অজানা রহস্য,মহাকাশের অজানা কাহিনী,না জানা রহস্য,জানা অজানা ইতিহাস,জানা অজানা খবর,রহস্যময় কিছু মানুষের নাম
» টিউনমেন্টঃ কোন মন্তব্য নেই

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি - ঘুরছে ব্ল্যাকহোল

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি - ঘুরছে ব্ল্যাকহোল

এখনো ৫৫ মিলিয়ন আলোকবর্ষ দূরে একটি ব্ল্যাকহোল ঘুরছে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।
এর আগে, গত বছরের এপ্রিলে এম৮৭ (মেসিয়ার ৮৭) নামের গ্যালাক্সির কেন্দ্রে থাকা ব্ল্যাক হোলটির ছবি প্রথমবারের মতো প্রকাশের পর এটি আলোচনায় আসে।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি - ঘুরছে ব্ল্যাকহোল

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি - ঘুরছে ব্ল্যাকহোল 


 ছবিতে দেখা যায় হলদে রঙের ধুলো ও গ্যাসের একটি চক্র প্রকাণ্ড ব্ল্যাকহোলটিকে ঘিরে আছে। 

এখন বিজ্ঞানীরা দেখতে পেয়েছেন যে, ব্ল্যাকহোলটি প্রত্যাশার মতো আচরণ করছে এবং মূল ছবিতে দেখা অর্ধচন্দ্রাকৃতির আকারটি বেশ কয়েক বছর ধরে স্থির থাকছে। যা ব্ল্যাকহোলের প্রকৃতি ও এর ছায়া সম্পর্কে প্রথম ছবির পরে পাওয়া ধারণার বিষয়টি নিশ্চিত হতে সহায়তা করে।


কিন্তু তারা এটা আবিষ্কার করে অবাক হয়েছেন, রিংয়ের অস্তিত্ব ও ব্যাস স্থির থাকলেও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এটি কাঁপতে থাকে। গ্যাস ব্ল্যাকহোলের উপরে পড়ে এবং উত্তাপকে আরও উত্তাল করে তোলে ও চরম অবস্থায় পৌঁছায় বলে এমনটা হয়।


সেন্টার ফর অ্যাস্ট্রোফিজিক্সের জ্যোতির্বিজ্ঞানী ম্যাকিক উইলগাস বলেন, 'যেহেতু পদার্থের প্রবাহ অশান্ত, তাই এটি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কাঁপতে দেখা দেয়।'


ব্ল্যাকহোলটি ৪ হাজার কোটি কিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিজ্ঞান গবেষণা সংস্থা ন্যাশনাল সায়েন্স ফাউন্ডেশন (এনএসএফ) গত বছরের এপ্রিলে এক প্রেস কনফারেন্সে ব্ল্যাক হোলের প্রথম ছবিটি প্রকাশ করে। 


ওয়াশিংটন ডিসি, ব্রাসেলস, স্যানটিয়াগোম, সাংহাই, টাইপেই ও টোকিওতে একই যোগে এই প্রেস কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়। এনএসএফ তাদের টুইটার পেজেও এই ছবি প্রকাশ করে।

 
ছবি তোলার কাজটি করেছে ইভেন্ট হরাইজন নামে এক প্রকল্পের টেলিস্কোপ (ইএইচটি)। যা বানানো হয়েছে পৃথিবীর ৮টি মহাদেশে বসানো অত্যন্ত শক্তিশালী ৮টি রেডিও টেলিস্কোপের নেটওয়ার্ক দিয়ে।

Tags: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি - ঘুরছে ব্ল্যাকহোল,types of technology,technology meaning,technology articles,technology - wikipedia,technology advantages,technol
» টিউনমেন্টঃ কোন মন্তব্য নেই

জেএসসি পরীক্ষার্থীরা অটো প্রমোশন পাবে না

জেএসসি পরীক্ষার্থীরা অটো প্রমোশন পাবে না

জেএসসি পরীক্ষার্থীরা অটো প্রমোশন পেয়ে নবম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হতে পারবেন না। বিদ্যালয়ের নিজস্ব নিয়মে মূল্যায়নের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীরা অষ্টম থেকে নবম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হবেন বলে 

জানিয়েছেন আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির চেয়ারম্যান ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক।

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জাতীয় শিক্ষা বোর্ড থেকে এ কথা বলেন বোর্ড চেয়ারম্যান।

জেএসসি পরীক্ষার্থীরা অটো প্রমোশন পাবে না

জেএসসি পরীক্ষার্থীরা অটো প্রমোশন পাবে না 


তিনি বলেন, অষ্টম থেকে নবম শ্রেণিতে অটো প্রমোশন হবে না, যেকোনো পদ্ধতিতেই মূল্যায়ন হবে। এছাড়া, পঞ্চম ও ষষ্ঠ শ্রেণির বিষয়ে মাউশি থেকে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

জিয়াউল হক বলেন, অটো প্রোমোশন বলতে কিছু নেই। মূল্যায়নের মাধ্যমেই পরবর্তী ক্লাসে উঠতে হবে। 

সবকিছুই মূল্যায়নের ভিত্তিতে হবে। তবে কী পদ্ধতিতে মূল্যায়ন হবে সে বিষয়টি এখনো ঠিক হয়নি।


আন্তঃশিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান বলেন, গাইডলাইন করতে কিছু সময় লাগবে। প্রাথমিকভাবে (গাইডলাইন) ঠিক করেছি- মার্চের ১৫ তারিখ পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শ্রেণি কার্যক্রম চলেছে। এই পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা একটা লেসন পেয়েছে।

 এরপরে সংসদ টিভি, অনলাইন ক্লাসে অংশ নিয়েছে। এরপরে যদি ক্লাস শুরুর সুযোগ হয় সেই সময় থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত যতটুকু পড়ানো সম্ভব হবে তার উপর ভিত্তি করে পরবর্তী শ্রেণিতে উন্নীতের জন্য মূল্যায়ন করা হবে।

 যে জায়গাগুলো পড়ানো যাবে না সেগুলো পরবর্তী শ্রেণিতে কিছুটা লিংক আপ করে দেবো, তবে বাধ্যতামূলক না।

 যেমন- নবম শ্রেণিতে যখন ক্লাস শুরু করবে তখন অষ্টম শ্রেণিতে যেটুকু অতি প্রয়োজন সে বিষয়ে পড়ানোর নির্দেশনা দেবো।

Tags:- অটো প্রমোশন পাবে না জেএসসি পরীক্ষার্থীরা,jsc result,jsc result marksheet,jsc result 2018,jsc scholarship result 2019,first jsc exam in bangladesh,jsc exams,jsc scholarship result 2020,jsc exam 2020,jsc scholarship result 2021,jsc exam 2021
» টিউনমেন্টঃ কোন মন্তব্য নেই

[Solve] Related Post Thumbnail Not working

Related Post Thumbnail Not working

কেমন আছেন সবাই ? আশা করি সবাই ভালো আছেন।
আজকের টিউন রিলাটেড পোস্টে থাম্বনাইল ইমেজ ইরোর দেখায় কেন।।
আজকে আমার এই টিউন দেওয়ার কথা ছিল না কিন্তু না দিয়ে থাকতে পারলাম না।

কিছু সাইট আমি রোজ ১ বার হলেও ভিজিট করি।
সাইট গুলোতে ইদানিং দেখা যাচ্ছে পোস্টে ঈমেজ ঠিক ভাবে দেখা গেলেও রিলাটেড পোস্টে থাম্বনাইল ইমেজ ইরোর দেখা যাচ্ছে।

আপনি চেক করে দেখতে পারেন আপনার সাইট এ এই সমস্যা হচ্ছে কিনা।

এই সমস্যা টি তখনই বুঝতে পারবেন , আপনি যদি ব্লগারের আপডেট ভারশন ব্যবহার করে পোস্ট করে থাকেন।

ফেসবুকের সাথে সাথে গুগল ব্লগারও আপডেট করা হয়েছে।
আর এই আপডেট থেকেই রিলাটেড পোস্টে থাম্বনাইল ইমেজ ইরোর সমস্যা টি দেখা যাচ্ছে।

এই সমস্যা টি আমার সাইটেও দেখা দিয়েছিল। আমি এই সমস্যাটি দীরঘ্য সময় ধরে চিন্তা ভাবনা করে সমাধান খুজে পেয়েছি।

রিলাটেড পোস্টে থাম্বনাইল ইমেজ ইরোর যে দেখায় তার ১ টি প্রমান আপনারা দেখে নিতে পারেন।।

ডেমোঃ- ০১

Related Post Thumbnail Not working

Related Post Thumbnail Not working 


পোস্টে দেখুন ইমেজ থিক ভাবেই দেখা যাচ্ছে। কোন রুপ সমস্যা নেই।

ডেমোঃ- ০২

Related Post Thumbnail Not working

Related Post Thumbnail Not working 


পোস্টে ইমেজ থিক থাকলেও দেখুন রিলাটেড পোস্টে ইমেজ ইরোর দেখা যাচ্ছে।

তবে সমাধান করা যাক এই সমস্যা টি।

বিদ্রঃ- টেমপ্লেট এডিট কোড়াড় পূর্বে অবশ্যই টেমপ্লেট টি ব্যাক আপ দিয়ে নিন।

স্টেপঃ-০১

ব্লগারে লগিন করুন এবং টেমপ্লেট এডিট করুন।

সার্চ করুন </head>

সার্চ বক্স ওপেন করতে কীবোর্ডে টাইপ করুন ctrl+f

তবে আপনি যদি রিলাটেড পোস্টের সি এস এস কোথায় দেওয়া আছে সেটা খুজে পেয়া থাকেন, তবে নিচের কোড টি দ্বারা রিপ্লেস করুন।

কোডঃ- ০১ 

[CODE]<!--Related Posts with thumbnails Scripts and Styles Start-->
<b:if cond='data:blog.pageType == &quot;item&quot;'>
<style type='text/css'>
#related-posts {
    width: auto;
    margin: 0px auto;
}
#related-posts h2 {
    margin: 0px 0px 10px 0px !important;
    border-radius: 5px 5px 0px 0px;
    color: #ffffff;
    padding: 5px;
    font-size: 13px;
    background: white;
    background-color: #ff12cf;
    text-align: center;
    background-image: -webkit-gradient(linear,left top,right top,from(#1da1f2),to(#4f37ac));
    background-image: linear-gradient(to right,#ff12cf,#5336ad);
}
#related-posts .related_img {
    transition: all 300ms ease-in-out;
    -webkit-transition: all 300ms ease-in-out;
    -moz-transition: all 300ms ease-in-out;
    -o-transition: all 300ms ease-in-out;
    -ms-transition: all 300ms ease-in-out;
    width: 90%;
    height: 160px;
    margin-left: 5%;
    border-radius: 5px 50px;
}
#related-title {
    color: #ff12cf;
    line-height: 16px;
    padding: 10px 5px;
    text-align: center;
    text-shadow: 0 2px 2px #fff;
    text-decoration: none !important;
}
#related-posts .related_img:hover{ 
    opacity:.7;
    filter:alpha(opacity=70);
    -moz-opacity:.7;
    -khtml-opacity:.7;
}
#related-title:hover {
  color:#4f37ac;
    text-decoration: none; 
}
</style>
<script type='text/javascript'>
//<![CDATA[
imgr=new Array();imgr[0]="http://2.bp.blogspot.com/-ex3V86fj4dQ/UrCQQa4cLsI/AAAAAAAAFdA/j2FCTmGOrog/s1600/no-thumbnail.png";showRandomImg=true;aBold=true;summaryPost=400;summaryTitle=20;numposts1=12;numposts2=4;function removeHtmlTag(strx,chop){var s=strx.split("<");for(var i=0;i<s.length;i++){if(s[i].indexOf(">")!=-1){s[i]=s[i].substring(s[i].indexOf(">")+1,s[i].length)}}s=s.join("");s=s.substring(0,chop-1);return s}
  function showrecentposts1(json){j=(showRandomImg)?Math.floor((imgr.length+1)*Math.random()):0;img=new Array();if(numposts2<=json.feed.entry.length){maxpost=numposts2}else{maxpost=json.feed.entry.length}for(var i=0;i<maxpost;i++){var entry=json.feed.entry[i];var posttitle=entry.title.$t;var pcm;var posturl;if(i==json.feed.entry.length)break;for(var k=0;k<entry.link.length;k++){if(entry.link[k].rel=='alternate'){posturl=entry.link[k].href;break}}for(var k=0;k<entry.link.length;k++){if(entry.link[k].rel=='replies'&&entry.link[k].type=='text/html'){pcm=entry.link[k].title.split(" ")[0];break}}if("content"in entry){var postcontent=entry.content.$t}else if("summary"in entry){var postcontent=entry.summary.$t}else var postcontent="";postdate=entry.published.$t;if(j>imgr.length-1)j=0;img[i]=imgr[j];s=postcontent;a=s.indexOf("<img");b=s.indexOf("src=\"",a);c=s.indexOf("\"",b+5);d=s.substr(b+5,c-b-5);if((a!=-1)&&(b!=-1)&&(c!=-1)&&(d!=""))img[i]=d;var month=[1,2,3,4,5,6,7,8,9,10,11,12];var month2=["Jan","Feb","Mar","Apr","May","Jun","Jul","Aug","Sep","Oct","Nov","Dec"];var day=postdate.split("-")[2].substring(0,2);var m=postdate.split("-")[1];var y=postdate.split("-")[0];for(var u2=0;u2<month.length;u2++){if(parseInt(m)==month[u2]){m=month2[u2];break}}var daystr=day+' '+m+' '+y;pcm='<a href="'+posturl+'">'+pcm+' comments</a>';var trtd='<div class="col_maskolis"><h2 class="posttitle"><a href="'+posturl+'">'+posttitle+'</a></h2><a href="'+posturl+'"><img class="related_img" src="'+img[i]+'"/></a><div class="clear"></div></div>';document.write(trtd);j++}}var relatedTitles=new Array();var relatedTitlesNum=0;var relatedUrls=new Array();var thumburl=new Array();function related_results_labels_thumbs(json){for(var i=0;i<json.feed.entry.length;i++){var entry=json.feed.entry[i];relatedTitles[relatedTitlesNum]=entry.title.$t;try{thumburl[relatedTitlesNum]=entry.gform_foot.url}catch(error){s=entry.content.$t;a=s.indexOf("<img");b=s.indexOf("src=\"",a);c=s.indexOf("\"",b+5);d=s.substr(b+5,c-b-5);if((a!=-1)&&(b!=-1)&&(c!=-1)&&(d!="")){thumburl[relatedTitlesNum]=d}else thumburl[relatedTitlesNum]='http://2.bp.blogspot.com/-ex3V86fj4dQ/UrCQQa4cLsI/AAAAAAAAFdA/j2FCTmGOrog/s1600/no-thumbnail.png'}for(var k=0;k<entry.link.length;k++){if(entry.link[k].rel=='alternate'){relatedUrls[relatedTitlesNum]=entry.link[k].href;relatedTitlesNum++}}}}function removeRelatedDuplicates_thumbs(){var tmp=new Array(0);var tmp2=new Array(0);var tmp3=new Array(0);for(var i=0;i<relatedUrls.length;i++){if(!contains_thumbs(tmp,relatedUrls[i])){tmp.length+=1;tmp[tmp.length-1]=relatedUrls[i];tmp2.length+=1;tmp3.length+=1;tmp2[tmp2.length-1]=relatedTitles[i];tmp3[tmp3.length-1]=thumburl[i]}}relatedTitles=tmp2;relatedUrls=tmp;thumburl=tmp3}function contains_thumbs(a,e){for(var j=0;j<a.length;j++)if(a[j]==e)return true;return false}function printRelatedLabels_thumbs(){for(var i=0;i<relatedUrls.length;i++){if((relatedUrls[i]==currentposturl)||(!(relatedTitles[i]))){relatedUrls.splice(i,1);relatedTitles.splice(i,1);thumburl.splice(i,1);i--}}var r=Math.floor((relatedTitles.length-1)*Math.random());var i=0;if(relatedTitles.length>0)document.write('<h2>'+relatedpoststitle+'</h2>');document.write('<div style="clear: both;"/>');while(i<relatedTitles.length&&i<20&&i<maxresults){document.write('<a style="float:left;width:50%;text-decoration:none !important;');if(i!=0)document.write('"');else document.write('"');document.write(' href="'+relatedUrls[r]+'"><img class="related_img" src="'+thumburl[r]+'"/><br/><div id="related-title">'+relatedTitles[r]+'</div></a>');if(r<relatedTitles.length-1){r++}else{r=0}i++}document.write('</div>');relatedUrls.splice(0,relatedUrls.length);thumburl.splice(0,thumburl.length);relatedTitles.splice(0,relatedTitles.length)}
//]]>
</script>
</b:if>
<!--Related Posts with thumbnails Scripts and Styles End-->[/CODE]



স্টেপঃ-০২

এবার আপনাকে খুজে বের করতে হবে রিলাটেড আপডেট এর কোড টি কোথায় আছে।
বেশির ভাগ ক্ষেত্রে কমেন্ট সেকশনের উপরে থাকে।
খুজে বের করুন...।

নিচের কোড টি দ্বারা রিপ্লেস করুন।

কোডঃ- ০২


[CODE]<!-- Related post start-->
<b:if cond='data:blog.pageType == &quot;item&quot;'>
    <div id='related-posts'>
        <b:loop values='data:post.labels' var='label'>
            <b:if cond='data:label.isLast != &quot;true&quot;'>
        </b:if>
        <b:if cond='data:blog.pageType == &quot;item&quot;'>
        <script expr:src='&quot;/feeds/posts/default/-/&quot; + data:label.name + &quot;?alt=json-in-script&amp;callback=related_results_labels_thumbs&amp;max-results=4&quot;' type='text/javascript'/></b:if></b:loop>
        <script type='text/javascript'>
            var currentposturl=&quot;<data:post.url/>&quot;;
            var maxresults=4;
            var relatedpoststitle=&quot;<b>You may also Like</b>&quot;;
            removeRelatedDuplicates_thumbs();
            printRelatedLabels_thumbs();
        </script>
    </div>
  <div style='clear:both;'/>
</b:if>
<!-- Related post end-->[/CODE]



 স্টেপঃ-০৩

আপনার কাজ শেষ। এখন টেমপ্লেট টি সেভ করুন।
এবার আপনার সাইট টি ভিজিট কোড়ে দেখুন সফল ভাবে আপনি কাজ করতে পেরেছেন কিনা। 


ধন্যবাদ সবাইকে।
কমেন্ট কোড়ে জানাবেন আপনি সফল ভাবে কাজ করতে পেরেছেন কিনা।
আপনার ১ টি মন্তব্য আমাকে সামনে এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরনা যোগায়।

টাটা।

ক্রেডিটঃ-    SMsudipBD.Com


Tags:- [Solve] Related Post Thumbnail Not working,blogger not showing all posts,blogger images not showing,blogspot pictures not showing,blogger image could 
» টিউনমেন্টঃ কোন মন্তব্য নেই

কিভাবে একটি সাইট ম্যাপ তৈরি করবেন।

 কিভাবে একটি সাইট ম্যাপ তৈরি করবেন।

ডেমো Site ম্যাপঃ- 

কিভাবে একটি সাইট ম্যাপ তৈরি করবেন।

কিভাবে একটি সাইট ম্যাপ তৈরি করবেন।



আশা করি সবাই ভালো আছেন।
আমিও খুব ভালোই আছি। আজকের টিউন কিভাবে একটি সাইট ম্যাপ তৈরি করবেন।

অনেকে আছেন যারা ভাবতেছেন কি ভাবে আপনার সাইট এ একটি সুন্দর Design সাইট ম্যাপ তৈরি করবেন।

তাদের জন্যই আমার আজকের এই টিউটোরিয়াল।

আশা করি আপনার অবশ্যই কাজে আসবে।

স্টেপঃ-০১

ব্লগারে লগিন করুন। ১টি সাইট ম্যাপ নামে পেজ খুলুন।
পেজে এইজ টি এম এল মুডে ক্লিক করুন।

আমার দেওয়া নিচের কোড টি কপি করে নিয়ে পেস্ট করুন।


[code]<script type="text/javascript">
var numposts = 100;
var standardstyling = true;
function showrecentposts(json) {
for (var i = 0; i < numposts; i++) {
var entry = json.feed.entry[i];
var posttitle = entry.title.$t;
var posturl;
if (i == json.feed.entry.length) break;
for (var k = 0; k < entry.link.length; k++) {
if (entry.link[k].rel == 'alternate') {
posturl = entry.link[k].href;
break;
}
}
posttitle = posttitle.link(posturl);
if (standardstyling) document.write('<li>');
document.write(posttitle);
}
if (standardstyling) document.write('</li>');
}
</script><br />
<div class="site-map"><ul><script src="https://www.smsudipbd.com/feeds/posts/default?orderby=published&amp;alt=json-in-script&amp;callback=showrecentposts&amp;max-results=999"></script></ul></div><style type="text/css">
.site-map ul {
    list-style: none;
    margin-left: -40px;
}
.site-map ul li {
    font-size: 15px;
    padding: 5px;
    background: none;
    border: 1px solid #ddd;
    border-radius: 5px;
    margin: 0px 0px 10px 0px;
}
</style>[/code]


বিদ্রঃ- অবশ্যই কোডের মধ্যে COLOR চিহ্নিত স্থানে আপনার সাইট এর নাম দিবেন।

এইত হয়ে গেলো আপনার সাইট এর জন্য সুন্দর ১টি সাইট ম্যাপ।


আমার এই ক্ষুদ্র টিউন টি যদি আপনার কাজে লাগে অবশ্যই ১টি মন্তব্য করে জানাবেন।

জানিনা আপনাদের মন্তব্যের মাঝে কি লুকিয়ে আছে। তবে এত টুকু বলব আমি নতুন কিছু দেয়ার উৎসাহ খুজে পাই। 



এত ক্ষন ধৈর্য সহকারে টিউন টি পরার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

পরিশেষে বলব , টিউনের বানানে ভুল ভ্রান্তি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টি তে দেখবেন।।

সকলে নিরোগ হোন, সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন।। আজ এ পর্যন্তই।

টাটা।

ক্রেডিটঃ- SMsudipBD.Com

Tags:- How to create sitemap,create visual sitemap,html sitemap,sitemap example,html sitemap generator,xml sitemap example,sitemap google,how to submit sitemap to google,generate sitemap wordpress
Help
X